৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ বিকাল ৩:৩৯
ব্রেকিং নিউজঃ
‘অনুপ ভট্টাচার্যের অবদান মানুষ শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে’ বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট এর পক্ষ থেকে ঢাকায় মানববন্ধও ও বিক্ষোভ সমাবেশ। বনগাঁ দক্ষিনের বিধায়ক স্বপন মজুমদারের করা হুশিয়ারি.. বিজেপির ঘরের শত্রু মীরজাফর কে ? শেখ হাসিনা মানবতার মা এবং বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য উত্তরসূরি: পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী হিংসা বন্ধ না হলে আমাদের কর্মীরা চুড়ি পরে বসে থাকবে না, তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি শান্তনু ঠাকুরের পশ্চিমবঙ্গে ভোটের ফল বেরোনোর পর থেকে চলছে তৃনমূলের হামলা লুট আগুন ধর্ষন হত্যা । পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে তৃনমূল কি ম্যজিকে জিতলো !! বিজেপির হারের ৫ কারণ নির্বাচনে জিতলেন স্বপন মজুমদার অভিনন্দন বাংলাদেশ আইবিএফের।

নিরাপদ সড়কের জন্য সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানালেন ইলিয়াস কাঞ্চন

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ সোমবার, অক্টোবর ২৩, ২০১৭,
  • 107 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

২২ অক্টোবর, ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : সরকারি নানা পদক্ষেপের ফলে সড়ক দুর্ঘটনার হার কিছুটা কমলেও, আইন না মানা আর সচেতনতার অভাবে এখনো চলছে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর মিছিল। দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ও নিরাপদ সড়কের জন্য সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন নিসচার চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন।

‘সাবধানে চালাবো গাড়ি, নিরাপদে ফিরবো বাড়ি’ স্লোগানে আজ দেশে প্রথমবারের মতো সরকারি উদ্যোগে পালিত হয়েছে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’। এ উপলক্ষে আজ রোববার দুপুরে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আলোচনা সভা করে নিরাপদ সড়ক চাই– নিসচা।

সরকার ২২ অক্টোবরকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ হিসেবে গত ৫ জুন ২০১৭ মন্ত্রী পরিষদের সভায় সর্বসম্মতিক্রমে স্বীকৃতি দিয়েছেন। এ জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান ইলিয়াস কাঞ্চন। তিনি বলেন, এবছরই প্রথম দেশব্যাপী সরকারীভাবে ২২ অক্টোবর ’জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ হিসেবে পালিত হচ্ছে। সরকারের পাশাপাশি নিসচার সারাদেশে ১১০টি শাখা সংগঠনেও দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালন করা হচ্ছে। এছাড়াও দেশের বাইরে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, সৌদি আরবসহ বিদেশে বিভিন্ন শাখা সংগঠনসমুহ একই কর্মসূচী পালন করছে।

সেমিনারে চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন আরো বলেন, ‘পথচারী ও মোটরসাইকেলের দুর্ঘটনা দিন দিন বাড়ছে। হাইওয়ে ট্রাফিক পুলিশ ঠিকমতো কাজ করছে না। তবে তাদের কিছু কিছু উদ্যোগ প্রশংসনীয়। তিনি বলেন, দেশের জনপ্রতিনিধিরা তাঁদের কাজগুলো করছেন না। আমার দাবি, নিরাপদ সড়কের জন্য জনপ্রতিনিধিরা যেন তাঁদের নিজ নিজ এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ে প্রচারণা করেন। ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ২২ অক্টোবর ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’  শুধু এক দিনের জন্য এ দিবস নয়। আমরা শুধু একদিনে দিবসটি উদযাপন করবো না বরং সারা বছর আমরা বিভিন্ন কার্য্যক্রমের মাধ্যমে চালক, মালিক, পথচারি, যাত্রী, স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, শ্রমজীবী, পেশাজীবীসহ সর্বস্তরের জনগনের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক কর্মকান্ড অব্যাহত রাখবো এবং দেশবাসিকে সচেতন করার মাধ্যমে দেশকে সড়ক দুর্ঘটনার মহামারী থেকে উদ্ধার করতে চাই। আর এজন্য তিনি সবার সহযোগীতা কামনা করেন।

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ও সুশৃঙ্খল সড়কের জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে। সড়ক নিরাপদের কাজ একা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পারবেন না, একা ইলিয়াস কাঞ্চন পারবেন না, একা ওবায়দুল কাদেরও পারবেন না। এ জন্য সবার সহযোগিতা দরকার। সাধারণ পথচারী থেকে উচ্চ পর্যায়ের সবার মানসিকতা পরিবর্তন করতে হবে।

দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) এবং সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উদ্যোগে এ আলোচনা সভায় ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, আমাদের কিছু অসাধারণ নেতা আছেন, অসাধারণ মানুষ আছেন যারা সড়কে নিয়ম মানতে চান না। রাস্তায় ফুটওভার ব্রিজ থাকতেও হামাগুড়ি দিয়ে ডিভাইডার পার হন। এমনকি ফ্লাইওভারেও দৌঁড়ে ডিভাইডার দিয়ে পার হতে দেখা যায়।
তখন দুর্ঘটনা ঘটলে এর জন্য কি চালককে দোষারোপ করা যায়?তিনি বলেন, রাস্তাকে নিরাপদ করতেই হবে। আমাদের বাঁচতে হলে, ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে নিরাপদ রাখতে হলে রাস্তা নিরাপদ করতেই হবে। আমরা অবশ্যই পারবো, তবে এ জন্য সবার মানসিকতা পরিবর্তন করতে হবে।

বিআরটি এর চেয়ারম্যান মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ এর সভাপতি চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য মনিরুল ইসলাম এমপি, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সাবেক সচিব এম এন সিদ্দিক, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

জনপ্রতিনিধিদের সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিদের এলাকায় হেলমেট ছাড়া গাড়ি চালায় অনেকে। জনপ্রতিনিধিদের সংবর্ধনা দিতে শত শত মানুষ হেলমেট ছাড়া গাড়ির মহড়া করে। এতে যানজট হয়। সাধারণ মানুষ ভোগান্তিতে পড়ে। নিজের নিয়ম মেনে না চলায় দুর্ঘটনার সম্মুখীন হয়।

তিনি বলেন, জনপ্রতিনিধিদের এলাকায়ই নসিমন করিমন তথা বেটারি চালিত গাড়ির কারখানা। যে গাড়িতে মানুষ প্রতিনিয়ত প্রাণ দিচ্ছে। সড়ক ঝুঁকিপূর্ণ করছে। কিন্তু তারা কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না।উল্লেখ্য, সরকার ২২ অক্টোবরকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছে। এ বছর ২২ অক্টোবর প্রথমবার দিবসটি সরকারিভাবে পালিত হচ্ছে। জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালনের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে, সাবধানে চালাব গাড়ি, নিরাপদে ফিরব বাড়ি। জনসাধারণকে সচেতন করতে এ দিনটি পালনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস পালন সম্পর্কিত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের পরিপত্র অনুযায়ী দিবসটি খ-শ্রেণির মর্যাদাভুক্ত করা হয়েছে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »