১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ১০:৫৪
ব্রেকিং নিউজঃ
মূর্খদের পিছনে সময় নষ্ট করা আহাম্মকী ছাড়া আর কিছুই নয়। প্রার্থী তালিকা প্রকাশে দেরী কেন !! ভাইজানের ব্রিগেড !! বরিশালের বিখ্যাত সুগন্ধা নাসিকা-শক্তিপীঠ (তাঁরাবাড়ি) পরিদর্শনে আসার সম্ভাবনা রয়েছে – ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির বাংলা মাসীকে চায় না ২ মে আমার কথা মিলিয়ে নেবেন পিকে: স্বপন মজুমদার মুশতাকের মৃত্যু: স্বচ্ছ তদন্তের দাবি জানাল যুক্তরাষ্ট্র রাজ্য রাজনীতিতে বিজেপি’র পর সিপিএম প্রধান বিরোধী শক্তি হয়ে ওঠার লক্ষ্যে ঘুঁটি সাজাচ্ছে !! আট দফায় বেনজির ভোট পশ্চিম বাংলায়! অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণ করছেন শেখ হাসিনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিক হত্যা-নির্যাতন কি ‘স্বাভাবিক’ হয়ে উঠল

আরপিওর শর্ত পূরণ করতে পারেনি অধিকাংশ নতুন দল

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ মঙ্গলবার, জানুয়ারি ১৬, ২০১৮,
  • 90 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

 

৭৬টি রাজনৈতিক দল নিবন্ধন চেয়ে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আবেদন করলেও নিবন্ধনের শর্ত পূরণ করতে পারেনি অধিকাংশ নতুন দল। ১৯৭২ সালের গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুসারে রাজনৈতিক দলের নিবন্ধনের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটিসহ ২১টি জেলা কমিটি ও ১০০ থানা কমিটি এবং সংশ্লিষ্ট থানায় ২০০ ভোটার সদস্য ও প্রত্যেক কমিটির সাথে কার্যালয় থাকা বাধ্যতামূলক। উল্লেখিত শর্ত পূরণ করে আবেদন জমা দেয়নি বেশিরভাগ দল। কয়েকটি দল প্রয়োজনীয় সংখ্যক কমিটি দিলেও কার্যালয় দিতে পারেনি। আবার কোনো দল কমিটি ও কার্যালয় দিলেও ১০০ থানা মিলে ২০ হাজার সদস্যের তালিকা দিতে পারেনি। নিবন্ধন চাওয়া কোনো দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় বাসাবাড়িতে, কোনোটির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এবং একই ভবনে একাধিক দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ছাড়াও বেশ কয়েকটি দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ঢাকার বাইরে। এমনকি বেশকিছু দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের যে ঠিকানা দেয়া হয়েছে, সেখানে তা পাওয়া যায়নি। বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা ও মাঠ পর্যায়ে খোঁজ নিয়ে এসব তথ্য জানা গেছে। ইসির সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এবার কোনো রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন হওয়ার সুযোগ নেই।

ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, নতুন দলের তথ্য যাচাই-বাছাইয়ের জন্য অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। শিগগিরই কমিটি তথ্যগুলো যাচাই-বাছাইয়ে মাঠে যাবে। এছাড়া গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনও নেয়া হবে।

একাদশ জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে নতুন দলের নিবন্ধনের জন্য আবেদন চেয়ে ৩০ অক্টোবর গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে কমিশন। এতে আবেদনের শেষ দিন ছিল ৩১ ডিসেম্বর। নিবন্ধনের ক্ষেত্রে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুযায়ী, তিনটির মধ্যে একটি শর্ত পূরণ হলেই তারা নিবন্ধনের যোগ্য বলে বিবেচিত হয়। শর্তগুলো হলো- দেশ স্বাধীন হওয়ার পর যেকোনো জাতীয় নির্বাচনে দলটির যদি অন্তত একজন সংসদ সদস্য থাকেন। যেকোনো একটি নির্বাচনে দলের প্রার্থী অংশ নেয়া আসনগুলোয় মোট প্রদত্ত ভোটের ৫ শতাংশ পায়। এবং দলটির যদি একটি সক্রিয় কেন্দ্রীয় কার্যালয়, দেশের কমপক্ষে এক তৃতীয়াংশ (২১টি) প্রশাসনিক জেলায় কার্যকর কমিটি এবং অন্তত ১০০টি উপজেলা/মেট্রোপলিটন থানায় কমপক্ষে ২০০ ভোটারের সমর্থন সম্বলিত দলিল থাকে।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নিবন্ধনের জন্য আবেদন করা দলের মধ্যে মাহমুদুর রহমানের নাগরিক ঐক্য, জোনায়েদ সাকির গণসংহতি আন্দোলন রয়েছে। আরপিও’র উল্লেখিত শর্ত শিথিলের জন্য দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে শতাধিক অনিবন্ধিত রাজনৈতিক দল। “রাজনৈতিক দল নিবন্ধন আইন সংশোধন আন্দোলন”-এর ব্যানারে এই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিচ্ছে “বাংলাদেশ কংগ্রেস” নামক একটি দল যার মহাসচিব এ্যাডভোকেট মোঃ ইয়ারুল ইসলাম। তিনি বলেন, নিবন্ধনের জন্য যে আইন তা কারও পক্ষে পালন করা সম্ভব নয়, সে আইন থাকার যৌক্তিকতা কোথায়?

সংশ্লিষ্টদের মতে, ১৯৭২ সালের গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের ৯০-বি ধারা সংশোধন না করলে রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের শর্ত শিথিল করা সম্ভব নয়। বর্তমানে ইসির নিবন্ধনে ৪০টি রাজনৈতিক দল রয়েছে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »