২০শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ভোর ৫:৫৪

হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার প্রতিবাদে হিন্দু মহাজোটের মাববন্ধন

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ শুক্রবার, জানুয়ারি ২৬, ২০১৮,
  • 114 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

সারা দেশে মঠ মন্দির প্রতিমা ভাংচুর, বিদ্যা দেবী সরস্বতী মাতাকে কটুক্তি ও অশ্লীল মন্তব্য, হিন্দু বাড়ী ও জমি দখল, হত্যা ও হত্যা প্রচেষ্টা, অগ্নি সংযোগ, পাঠ্যপুস্তক ইসলামীকরণ এর প্রতিবাদে এক মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করে।

আজ ২৬ জানুয়ারী শুক্রবার সকাল ১০.টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন আয়োজন করে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের অঙ্গ সংগঠন জাতীয় হিন্দু ছাত্র মহাজোট।

হরেকৃষ্ণ বারুরী সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন হিন্দু মহাজোটের সভাপতি অ্যাডঃ দিনবন্ধু রায়, মহাসচিব অ্যাডঃ গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক, সহ সভাপতি প্রদীপ পাল, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব উত্তম দাস, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট প্রতীভা বাকচী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ লাকি বাছার ছাত্র বিষয়ক সুমন সরকার যুব মহাজোটের নির্বাহী সভাপতি দেবব্রত মিত্র, সহ সভাপতি কৃষ্ণকান্ত বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক মিল্টন বসু, প্রধান সমন্বয়কারী সন্তোষ মাহাতো, আর্ন্তজাতিক সম্পাদক ডাঃ সমিত রায়, প্রচার সম্পাদক বলাই বিশ্বাস, ছাত্র মহাজোটের সাংগঠণিক সম্পাদক সাজেন কৃষ্ণ বল, প্রচার সম্পাদক জীবন কুমার রায়, জ্যোতিষ রায়, সুব্রত সাহা প্রমূখ।

বক্তাগণ বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আনিস আলমগীর বিদ্যাদেবী সরস্বতী মাতাকে নিয়ে যে অশ্লিল ও কুরুচিকর মন্তব্য প্রচার করেছে তা হিন্দু সম্প্রদায়কে চরমভাবে আহত করেছে। অতীতে ধর্ম নিয়ে কটুক্তির অভিযোগে শত শত মানুষ গ্রেফতার ও হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ীঘরে হামলা অগ্নি সংযোগ ও লুটপাঠ হয়েছে। অথচ এতবড় একটি ঘটনায় হিন্দু সম্প্রদায় ফুসে উঠলেও আনিস আলমগীরকে গ্রেফতার করা হয় নাই। হিন্দু সম্প্রদায় অবিলম্বে তার গ্রেফতার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে বহিস্কার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছে।

বক্তগণ আরও বলেন দেশের বিভিন্ন স্থানে সরস্বতী প্রতিমা ভাংচুর হয়েছে। বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সেখানে সরস্বতীপুজা করতে দেয় নাই। মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান, চট্টগ্রামের কালুলঘাট সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু বাড়ীঘরে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। রাঙ্গামাটিতে উপজাতি কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। কক্সবাজারের এমপি সাইমুম সরোয়ার এর হাতে লাঞ্চিত হয়েছে শিক্ষক সুনিল কুমার শর্মা। ফরিদপুরের মধুখালীতে সুনিল বিশ্বাসের ৭ টি গরু পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে। আনন্দ মোহন বসুর বাড়ী দখল সহ বিভিন্ন স্থানে মঠ মন্দির ও বাড়ীঘর ও জমি দখল করা হয়েছে। বক্তগণ বলেন পাঠ্যপুস্তকে হিন্দুদের ধর্ম বিশ্বাসে আঘাত করে এমন প্রবন্ধ ও গল্প সংযুক্ত করা হয়েছে। অথচ কোথায় পুলিশ আসামীদের গ্রেফতার করে নাই। কোন শাস্তি বিধান করে নাই।

বক্তাগণ অবিলম্বে অধ্যাপক আনিস আলমগীর সহ সকল আসামীর গ্রেফতার ও দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি, পাঠ্যপুস্তকে সাম্প্রদায়িক ও ধর্মীয় উস্কানীমুলক প্রবন্ধ, গল্প ও কবিতা প্রত্যাহার দাবী করছে। অন্যথায় সারা দেশে ব্যাপাক গণ আন্দোলন গড়ে তুলবে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »