২০শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ সকাল ৭:৪৩

প্রশ্ন সরবরাহের বিজ্ঞাপন একই ব্যক্তির, ধরা যাচ্ছে না কেন?

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২, ২০১৮,
  • 100 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

বিগত পিইসি, জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার আগে দেখা গেছে, প্রশ্ন সরবরাহের বিজ্ঞাপনে সয়লাব ছিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। বিভিন্ন গ্রুপ এবং ফেসবুক আইডি থেকে এই বিজ্ঞাপনগুলো প্রচার করা হলেও আমলে নিচ্ছে না শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এরমধ্যে কিছু ফেসবুক পেজ এবং গ্রুপ রয়েছে, যেখানে প্রশ্ন সরবরাহ করতে বিজ্ঞাপনের রীতিমতো প্রতিযোগিতা চলে।  এমনকি বিজ্ঞাপনদাতা  প্রমাণ করতে চায় যে, সে একজন আসল প্রশ্ন সরবরাহকারী। পাবলিক পরীক্ষা শুরুর আগে থেকেই শিক্ষার্থীদের সাহায্যের নাম করে খোলা এসব গ্রুপে চলে বিজ্ঞাপনের এই প্রতিযোগিতা।এই বিজ্ঞাপন পোস্টকারীদের মধ্যে কিছু ব্যক্তি অতি পরিচিত। তারা একই মোবাইল নম্বর এবং নাম ব্যবহার করে প্রশ্নের বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। প্রশ্ন সরবরাহকারী হিসেবে ফেসবুকে যার নাম সবচেয়ে বেশি আলোচিত, সে হলো ‘রকি ভাই’। সে জেএসসি পরীক্ষার সময় সঠিক প্রশ্ন সরবরাহের গ্যারান্টি দেয়।  এনিয়ে বিভিন্ন  পত্রিকায় লেখালেখিও হয়েছে। সেসব পত্রিকার রেফারেন্স দিয়ে এবার এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নের গ্যারান্টি দিয়েছে এই রকি। একই নম্বর ব্যবহার করে প্রতিনিয়ত  সে বিজ্ঞাপন দিচ্ছে ।  অনুসন্ধানে  জানা যায়, রকির দেওয়া নম্বরের বিপরীতে রয়েছে ফাহিম আলম নামে এক ব্যক্তির ফেসবুক অ্যাকাউন্ট। সেখানে তার  কুমিল্লার ঠিকানা  দেওয়া আছে।

কেবল প্রশ্ন সরবরাহই নয়, পরীক্ষার ফলাফল বদলে দেওয়ার গ্যারান্টি দিয়ে বিজ্ঞাপন দিচ্ছে ‘সোহাগ ইসলাম’ নামে একটি ফেসবুক প্রোফাইল। বিভিন্ন গ্রুপে মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে  প্রতিনিয়ত বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছে। অথচ এই নম্বরের মালিকরা রয়েছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে।এদিকে,  বৃহস্পতিবার( ১ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হয়েছে এসএসসি এবং সমমানের পরীক্ষা। এবার থেকেই প্রথম সব বোর্ডে একই প্রশ্ন  করা হয়। যে কারণে প্রশ্ন ফাঁসের শঙ্কা আরও বেড়ে যায়।  বুধবার ( ৩১ জানুয়ারি) দিবাগত গভীর রাত থেকেই বাংলা প্রথমপত্রের প্রশ্ন ফাঁসের গুজব ছড়ানো হলেও গুজব সত্যি হয় বৃহস্পতিবার সকালে। সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে বোর্ডের প্রশ্ন পোস্ট করা হয় ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে।  এই প্রশ্নের সঙ্গে পরীক্ষা কেন্দ্রে বিতরণ করা প্রশ্নের শতভাগ মিল পাওয়া যায়।

কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুল পরিদর্শনে এসে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ফেসবুকে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের সঙ্গে পরীক্ষার প্রশ্নের কোনও মিল নেই বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, ‘ফেসবুকে ছড়ানো প্রশ্নের সঙ্গে পরীক্ষার প্রশ্নের মিল নেই। আমি মিলিয়ে দেখেছি। বিষয়টি মিথ্যা ও গুজব। তবে যে ব্যক্তি এই প্রশ্নপত্রটি পোস্ট করেছেন, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বিটিআরসি ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছি। তারা ইতোমধ্যে এ বিষয়ে কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা তো জানেন, ২০ লাখ ছেলে-মেয়ের পুনরায় পরীক্ষা নেওয়া কী হয়রানি! প্রশ্ন ফাঁস যদি পরে প্রমাণ হয়, তাহলেও পরীক্ষা বাতিল করে দেবো। ফাঁস হওয়া প্রশ্নের পরীক্ষা আমরা গ্রহণ করবো না।’

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রশ্ন ফাঁস রোধে বিভিন্ন কৌশল নিয়েছি। সব কৌশল বলা ঠিক হবে না। যেগুলো বলা যায়, সেগুলো আগেও বলেছি। রিপিট করার প্রয়োজন নেই। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে বলা আছে। তারা যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।’

কিন্তু বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কমিশন ( বিটিআরসি) সূত্রে জানা যায়,  বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তেমন কোনও নির্দেশনা শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পায়নি তারা।বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভিন্ন কথা। ফেসবুকে শুধু মনিটরিং এবং রিপোর্ট করে এই গ্রুপগুলো বন্ধ করা ছাড়া, আর কোনও উপায় নেই। যা করা যায় তা হলো— যেই নম্বরগুলো ব্যবহার করা হয় তা ট্র্যাক করা। এই নম্বরগুলো এক ধরনের আর্থিক লেনদেনে ব্যবহার হয়ে থাকে। তাই এদের বের করা খুব সহজ। প্রশাসন চাইলেই তা করতে পারে।তথ্য প্রযুক্তিবিদ ও সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ তানভীর হাসান জোহার মতে, এই প্রশ্ন সরবরাহকারী বিজ্ঞাপনদাতাদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট রিপোর্ট করে বন্ধ করানো হলেও, তা কোনও স্থায়ী সমাধান নয়। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘রিপোর্ট করে ফেসবুক গ্রুপ কিংবা প্রোফাইল বন্ধ করা যেতে পারে। কিন্তু বন্ধ করে লাভ কী? তারা ফের অন্য নামে আরেকটি অ্যাকাউন্ট খুলে একই কাজ শুরু করে। এক্ষেত্রে যা করা যায় তা হলো— মোবাইল নম্বর ট্র্যাক করা। মোবাইলের বায়োমেট্রিক ডেটা করা হয়েছে অপরাধীদের খুঁজে বের করার জন্য। সেটা কাজে লাগানো যেতে পারে। এসব বিজ্ঞাপনদাতাদের লেনদেনে মোবাইল একমাত্র সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এমনকি ভাইবার, হোয়াটস অ্যাপ এগুলো ব্যবহার করতেও প্রয়োজন হয় মোবাইল নম্বর। প্রশাসন চাইলেই এদের খুঁজে বের করতে পারে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »