২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ১:১০
ব্রেকিং নিউজঃ
অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণ করছেন শেখ হাসিনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিক হত্যা-নির্যাতন কি ‘স্বাভাবিক’ হয়ে উঠল চট্রগ্রামের পটিয়া উপজেলায় প্রায় দেড় শতাধিক সংখ্যালঘু হিন্দু পরিবারকে ভিটে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করে নতুন বাইপাস সড়ক করার অপচেষ্টা চলছে। মিনি পাকিস্তানের প্রবক্তা ফিরহাদ হাকিমের বাইকের পিছনে সওয়ার কেন মমতা ব্যানার্জী ? সংক্ষিপ্ত বিশ্ব সংবাদ : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ দিনে ১০০০ ক্যালরি ঝরাবেন কীভাবে অশীতিপর স্বামী-স্ত্রীর মহাধুমধামে পুনঃবিবাহ সৈয়দ আবুল মকসুদ আর নেই প্রকৃতির নীরব কান্না পর্ব -১ সভ্যতার শুরুতে গড়ে ওঠা করাতি সম্প্রদায় এখন প্রায় বিলুপ্ত!

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন বাংলাদেশের চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার সন্তান বিপ্লব কুমারদেব।

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ সোমবার, মার্চ ৫, ২০১৮,
  • 87 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

তার পৈত্রিক বাড়ি চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার সহদেবপুর পূর্ব ইউনিয়নের মেধদাইর গ্রামে। তিনি হিরুধন দেব ও মিনা রানি দেবের একমাত্র ছেলে। মুক্তিযুদ্ধের সময় তারা ত্রিপুরা চলে যান এবং সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। বিপ্লব দেব ও তার পরিবার ত্রিপুরা চলে গেলেও তার অনেক আত্মীয় এখনো কচুয়ায় বসবাস করছেন। বিপ্লব দেবের চাচা প্রাণধন দেব গণমাধ্যমকে জানান, ‘বিপ্লবকে তার মা বাংলাদেশে থাকাকালে গর্ভধারণ করেছিলেন। তবে ত্রিপুরার মাটিতেই বিপ্লবের জন্ম।’ বিপ্লব দেবের কাকা প্রাণধন দেব কচুয়া উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ বর্তমান সভাপতি।

উল্লেখ্য, ১৮ ফেব্রুয়ারি ত্রিপুরা রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের বনমালিপুর আসন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বিপ্লব। এত বিপ্লবের নেতৃত্বে ৬০টি আসনের মধ্যে ৪৩টি আসন পেয়েছে বিজেপি। বিপ্লব নিজেও একটি আসনে জয়লাভ করেন। শনিবার ত্রিপুরাসহ তিন রাজ্যের নির্বাচনের ফল ঘোষণার পরপরই ভারতীয় গণমাধ্যমে বিপ্লব দেবকে ত্রিপুরার পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

 

বিপ্লব দেব রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ত্রিপুরা রাজ্য বিজেপির দায়িত্ব পান ২০১৬ সালে ৭ জানুয়ারি মাসে। বিপ্লব রাজ্য বিজেপির সভাপতির দায়িত্ব নিয়ে দুই বছরের মধ্যেই দলটিকে ঐতিহাসিক বিজয় এনে দেন। ত্রিপুরা রাজ্য বিজেপির সভাপতি বিপ্লব দেব ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারে থাকা দলটির সবচেয়ে কম বয়সী রাজ্য সভাপতি।

শনিবার বিপ্লব কুমার দেব বলেন, ত্রিপুরা রাজ্যের যোগাযোগ ও উন্নয়নের জন্য বাংলাদেশের সহযোগিতা নিয়ে রাজ্যের উন্নয়ন করা হবে। এ জয় বিজেপির জয় নয়, রাজ্যবাসীর জয় বলে অভিহিত করেন তিনি। বামফ্রন্ট ত্রিপুরাবাসীর সঙ্গে যে আচরণ করেছে, তার ফল হিসেবে রাজ্যের মানুষ এর জবাব দিয়েছে। তবে আমি ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী হতে প্রস্তুত আছি। তবে দলের সিদ্ধান্তই শেষ কথা।’

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলে বিজেপির প্রতিনিধিদলের প্রধান হয়ে বিপ্লব দেব যোগদান করেন। সম্মেলন শেষে তিনি হেলিকপ্টারযোগে গ্রামের বাড়ি কচুয়ায় গিয়েছিলেন।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »