১০ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ১:৪১

বরিশালে ৮ লাখ টাকায় কনস্টেবলের চাকরি!

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ বৃহস্পতিবার, মার্চ ১৫, ২০১৮,
  • 126 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

বরিশালে পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে আবেদনকারীদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারক চক্র। এই পদের জন্য ৮ লাখ টাকা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন চাকরি প্রার্থীরা। ইতোমধ্যে এই চক্রের ৩ দালালকে নগদ ৪ লাখ টাকা ও ৭ লাখ টাকার চেকসহ আটক করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে জেলা পুলিশ। এই অবৈধ লেনদেন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন সুশীল সমাজ। অপরদিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া স্বচ্ছ করতে আপ্রাণ চেষ্টা চলছে বলে দাবি পুলিশের।

 

সারাদেশে নিয়োগ নিয়োগ দেয়া হচ্ছে দশ হাজার পুলিশ কনস্টেবল। এরমধ্যে সাড়ে আট হাজার পুরুষ আর দেড় হাজার নারী। এরমধ্যে বরিশাল জেলায় নিয়োগ পাবেন ১৬১ জন নারী ও পুরুষ। এ পদে নিয়োগ পাইয়ে দেয়ার কথা বলে টাকা হাতিয়ে নেবার চেষ্টায় সক্রিয় রয়েছে একটি প্রতারক চক্র। চাকরি প্রার্থীরা জানান, এ পদে চাকরি দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নেয়া হচ্ছে আট লাখ টাকা। এর মধ্যে চার লাখ নিচ্ছে অগ্রিম।

 

কনস্টেবল পদে আবেদনকারী একজন বলেন, ‘আট লাখ টাকা চেয়েছে। যদি দিতে পারি তাহলে অ্যাপয়েনমেন্ট লেটার বাসায় পৌঁছায় দিবে। যাওয়াও লাগবে না।’

আরেকজন বলেন, ‘সরাসরি তারা চাচ্ছে না, কারো না কারো মাধ্যমে চাচ্ছে।’ এ অবস্থায় এ ধরণের অবৈধ লেনদেন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন সুশীল সমাজ।

সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সাবেক সভাপতি প্রফেসর এম মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘অবৈধ লেনদেনের মাধ্যমে তাদের দুর্নীতির শিক্ষা দেয়া হল। প্রশিক্ষণ প্রদান করা হল। তার পরবর্তীতে এরাই টাকা উশুল করার জন্য উৎসাহ হবেন।’

 

জনপ্রতিনিধি ও এসপির নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারক চক্র মানুষের কাছ থেকে টাকা নিচ্ছে বলে জানান বরিশালের পুলিশ সুপার। নিয়োগ প্রক্রিয়া স্বচ্ছ করতে আপ্রাণ চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘কিছু কিছু চক্র আমার ও আমাদের পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে টাকা আদায় করেছে। এরকম একটি চক্র আমরা ধরে ফেলেছি। মার মনে এরকম আরো কয়েকটি চক্র আছে।’

 

এর সাথে কোন জনপ্রতিনিধি জড়িত থাকলে তার মুখোশ উন্মোচন ও আইনের আওতায় আনা উচিত বলে মনে করেন এই জনপ্রতিনিধি।

বরিশাল-২ সংসদ সদস্য তালুকদার মোঃ ইউনুছ বলেন, ‘নিরপেক্ষতার মধ্যে দিয়ে নিয়োগ দেয়া উচিত। পুলিশ এবং জনপ্রতিনিধিরা যারা যুক্ত থাকে তাদেরকেও শাস্তি দেয়া উচিত।’

 

এ ঘটনায় গত ৮ মার্চ প্রতারক চক্রের ৩ সদস্যকে নগদ চারলাখ টাকা ও সাতলাখ টাকার চেকসহ গ্রেফতার করেছে জেলা পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়েছে মামলা।

 

বরিশালে প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষায় দুই হাজার ছয়শো জন অংশগ্রহণ করেন। আর লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেন এক হাজার নয়শো তিয়াত্তর জন। পরদিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া স্বচ্ছ করতে আপ্রাণ চেষ্টা চলছে বলে দাবি পুলিশের।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »