১৭ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ দুপুর ২:৩৪
ব্রেকিং নিউজঃ

ঢাকায় বিমসটেকের দ্বিতীয় বৈঠকে অজিত দোভাল

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৯, ২০১৮,
  • 105 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

ঢাকায় বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টি সেক্টরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক কো–অপারেশনের দ্বিতীয় বৈঠকে অজিত দোভালসহ সাতটি রাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের অংশগ্রহন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নত–সমৃদ্ধ অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় এতদঞ্চলের সব ধরনের সন্ত্রাস নির্মূল করার আহ্বান জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একটি নিরাপদ ও সমৃদ্ধ অঞ্চল গড়ে তুলতে আমাদের সকল প্রকার সন্ত্রাস সমূলে উৎপাটন করতে হবে।’

বুধবার রাতে বিমসটেক (বিআইএমএসটিইসি) রাষ্ট্রগুলোর ন্যাশনাল সিকিউরিটি চিফদের সঙ্গে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। বৈঠকের পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টি সেক্টরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক কো–অপারেশনের (বিমসটেক) জাতীয় নিরাপত্তাপ্রধানেরা সহযোগী সাতটি রাষ্ট্রের নিরাপত্তা সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা করতে বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করছেন।

এ ধরনের এটি দ্বিতীয় বৈঠক, যেটি বুধবার রাজধানীর রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রথম বৈঠকটি এক বছর আগে নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয়।
বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন, বিমসটেকভুক্ত দেশগুলো এ অঞ্চলের সন্ত্রাস উচ্ছেদে পারস্পরিক সহযোগিতাকে আরও জোরদার করবে। তিনি বলেন,
‘মাদকাসক্তি, মানব পাচার, সাইবার অপরাধ, সমুদ্রসীমা–সংক্রান্ত হুমকি এবং জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি এ অঞ্চলের সব দেশের জন্য একই ধরনের চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার পদ্ধতি আমাদের উদ্ভাবন করে সমন্বিতভাবে এর সমাধানে আমাদের সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী এ সময় সন্ত্রাস এবং জঙ্গিবাদ প্রশ্নে তাঁর সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির পুনরুল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা সন্ত্রাস এবং উগ্র চরমপন্থার বিরুদ্ধে তরুণ সম্প্রদায়, পরিবার-পরিজন এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে নিয়ে ব্যাপক জনসচেতনতামূলক পদক্ষেপ নিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী এ সময় বাংলাদেশের ভূখণ্ডকে কোনোভাবেই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য কাউকেই ব্যবহার করতে না দেওয়ায় তাঁর সরকারের দৃঢ় অবস্থানও পুনর্ব্যক্ত করেন।

দারিদ্র্যই এই অঞ্চলের উন্নয়নের সাধারণ শত্রু আখ্যায়িত করে প্রধানমন্ত্রী দারিদ্র্য বিমোচনে সবার সমন্বিত প্রয়াস প্রত্যাশা করেন। প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সমস্যা দ্বিপক্ষীয় আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধানে গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যদি তা সম্ভব না হয়, তাহলে বহুপাক্ষিকভাবেও এগুলোর সমাধান হতে পারে।’

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »