২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ১১:১২
ব্রেকিং নিউজঃ
জুলাইয়ের আগে করোনার টিকা রপ্তানি অনিশ্চিত : সেরাম ইনস্টিটিউট পশ্চিমবঙ্গ ষষ্ঠ দফার ভোট মোটামুটি শান্তিপূর্ণ, সফর বাতিল মোদির এত মৃত্যু এত শূন্যতা আগামীকালের ষষ্ঠ দফার ৪৩-টি আসনে কোন দল এগিয়ে !! বাংলাদেশের ভোটার হয়ে কি ভাবে ভারতের বিধান সভায় নির্বাচন করছেন আলো রানী সরকার ? করোনায় মারা গেলেন কবি শঙ্খ ঘোষ বিজেপি মন্ত্রীসভার প্রধান মুখ হতে পারেন যাঁরা !! ঠিকাদারকে টাকা পরিশোধ না করায় থমকে গেছে উজিরপুরে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মান কাজ ।। ধুলো বালীতে ফ্যাকাশে হয়ে আছে ম্যূরাল।। আওয়ামী লীগ নেতাকর্মিদের ক্ষোভ।। ফিরহাদের ভিডিয়ো নিয়ে কমিশনে বিজেপি, তৃণমূল প্রার্থীকে নিষিদ্ধ করার দাবি জানাল গেরুয়া শিবির পশ্চিমবঙ্গে এক দিনে মোদির ৪ সভা

ডাকাতদের প্রতিষ্ঠিত মন্দিরে জাঁকজমক কালিপূজা

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ সোমবার, এপ্রিল ৯, ২০১৮,
  • 102 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

ঘন জঙ্গলে ঘেরা বিষ্ণুপুরের মাধবগঞ্জ৷ ডাকাতের সে কী রমরমা৷ দিনেদুপুরেই ভয় পেত অদূরবর্তী এলাকার লোকজন৷ ওই বুঝি এল! লুটে নিয়ে গেল যা কিছু অতি কষ্টের সম্বল৷ হাজার বছর আগের সেই গল্প এখনও লোকমুখে ফেরে৷ ডাকাতরাই এখানে চৈত্র শুক্ল পঞ্চমীতে শুরু করেছিল মা কালীর আরাধনা৷

সেই থেকে আজও নিয়ম মেনে চলে আসছে রক্ষা কালীর আরাধনা৷ এখন তো এই কালীপূজা ঘিরে গোটা রসিকগঞ্জে উৎসবের আমেজ৷ ছেলে থেকে বুড়ো-সকলেরই আন্তরিক অংশগ্রহণ৷

কথিত আছে, এক সময় ঝোপঝাড়ে ঘেরা ছিল বিষ্ণুপুর শহরের মাধবগঞ্জ এলাকা৷ আর শহরের শাঁখারি বাজার পোদ্দার পাড়ায় দাপুটে ডাকাতদের ছিল বসবাস৷ ডাকাতি করতে যাওয়ার আগে জঙ্গলে বেল গাছের নিচে প্রতিষ্ঠিত কালীমূর্তিতে পূজা করত তারা৷ এলাকার প্রবীণদের কাছ থেকে শোনা গল্প, চৈত্র মাসের এই বিশেষ তিথিতে সিদ্ধিলাভ করে তারা৷ সেই থেকেই এই প্রাচীন কালীপূজার শুরু৷ প্রথমে বলিপ্রথাও ছিল এই কালী আরাধনার অঙ্গ৷ পরে বিষ্ণুপুরের মল্ল রাজাদের নির্দেশে সেই প্রথা বন্ধ হয়ে যায়৷

এরপর সময় পাল্টেছে৷ পূজার আয়োজনেও বেশ কিছু বদল এসেছে৷ এখন আর জঙ্গল বলে কিছু নেই৷ বিরাট বিরাট বাড়ি সেখানে৷ যে বেল গাছের নিচে মাতৃআরাধনায় মেতে থাকত ডাকাতদল, এখন সেখানে মন্দির৷ তবে শ্রদ্ধা, ভক্তি, আন্তরিকতায় কিন্তু কোনও কমতি নেই৷ এ পূজা আজ সার্বজনীন৷

পূজা কমিটির সম্পাদক মহাদেব সেন জানালেন, পূজার শুরুটা ডাকাতদের হাতে ঠিকই৷ কিন্তু বসন্তকাল অর্থাৎ এই সময়টা তো বিভিন্ন রোগ হয়! তা থেকে মা রক্ষা কালীই একমাত্র রক্ষা করতে পারেন৷ এই বিশ্বাস মায়ের পূজায় এতটা জাঁকজমক এনেছে৷

তিনি আরো জানান, এখন এই পূজার বাজেট পঞ্চাশ হাজার টাকা৷ পুরো টাকাই ভক্তদের অনুদান থেকে আসে৷ এর জন্য কারও কাছে চাঁদা চাওয়া হয় না৷ দরকারও পড়ে না৷ যত দিন যাচ্ছে মায়ের পূজায় ভক্ত সমাগম বেড়েই চলেছে৷ মায়ের মাহাত্ম্যই ভক্তদের এখানে নিয়ে আসে বলে বিশ্বাস করেন এলাকার মানুষ৷

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »