১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ৩:৩৬
ব্রেকিং নিউজঃ
ভাইজানের ব্রিগেড !! বরিশালের বিখ্যাত সুগন্ধা নাসিকা-শক্তিপীঠ (তাঁরাবাড়ি) পরিদর্শনে আসার সম্ভাবনা রয়েছে – ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির বাংলা মাসীকে চায় না ২ মে আমার কথা মিলিয়ে নেবেন পিকে: স্বপন মজুমদার মুশতাকের মৃত্যু: স্বচ্ছ তদন্তের দাবি জানাল যুক্তরাষ্ট্র রাজ্য রাজনীতিতে বিজেপি’র পর সিপিএম প্রধান বিরোধী শক্তি হয়ে ওঠার লক্ষ্যে ঘুঁটি সাজাচ্ছে !! আট দফায় বেনজির ভোট পশ্চিম বাংলায়! অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণ করছেন শেখ হাসিনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিক হত্যা-নির্যাতন কি ‘স্বাভাবিক’ হয়ে উঠল চট্রগ্রামের পটিয়া উপজেলায় প্রায় দেড় শতাধিক সংখ্যালঘু হিন্দু পরিবারকে ভিটে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করে নতুন বাইপাস সড়ক করার অপচেষ্টা চলছে। মিনি পাকিস্তানের প্রবক্তা ফিরহাদ হাকিমের বাইকের পিছনে সওয়ার কেন মমতা ব্যানার্জী ?

চীনকে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ মনে করছেন মার্কিন নৌসেনা কর্মকর্তা

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ বৃহস্পতিবার, মে ৩১, ২০১৮,
  • 78 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: অ্যাডমিরাল হ্যারি হ্যারিসপ্রশান্ত মহাসাগরে উত্তর কোরিয়া শান্তির জন্য আশু হুমকি। তবে চীনের ‘আধিপত্য বিস্তারের স্বপ্ন’ হচ্ছে ওয়াশিংটনের জন্য সবচেয়ে বড় দীর্ঘমেয়াদি চ্যালেঞ্জ।

কথাগুলো বলেছেন প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী নৌসেনাপ্রধান অ্যাডমিরাল হ্যারি হ্যারিস। গতকাল বুধবার পার্ল হারবারে নতুন প্রধান অ্যাডমিরাল ফিল ডেভিডসনের কাছে দায়িত্বভার বুঝিয়ে দেওয়ার সময়ে তিনি এসব কথা বলেন।

অ্যাডমিরাল হ্যারিসের দক্ষিণ কোরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। খবর সিএনএন।

হ্যারিস বলেন, উত্তর কোরিয়া আমাদের সবচেয়ে আশু হুমকি হয়ে রয়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে পারে এমন ক্ষেপণাস্ত্রের মালিক উত্তর কোরিয়া, এটি গ্রহণযোগ্য নয়।

তবে চীন হচ্ছে আমাদের সবচেয়ে বড় দীর্ঘমেয়াদি চ্যালেঞ্জ। যুক্তরাষ্ট্র এবং আমাদের মিত্রদের অভিনিবিষ্ট সংশ্লিষ্টতা ও কর্মকাণ্ড ছাড়া চীন এশিয়ায় তার আধিপত্য বিস্তারের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করবে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের মধ্যে ১২ জুনের সম্ভাব্য বৈঠকে হ্যারিস কী ভূমিকা পালন করবেন, তা এখনো স্পষ্ট নয়। ১৮ মে সিনেটে তাঁর মনোনয়ন পাঠানো হয়েছে।

হ্যারিস অস্ট্রেলিয়ায় রাষ্ট্রদূত হিসেবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পছন্দ ছিলেন। এপ্রিলে তাঁর অনুমোদনের শুনানি অনুষ্ঠানের কয়েক ঘণ্টা আগে মনোনয়নটি প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। সে সময় কয়েকটি সূত্র সিএনএনকে জানায়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর ইচ্ছাতেই এটা করা হয়।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »