৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ বিকাল ৪:১২
ব্রেকিং নিউজঃ
‘অনুপ ভট্টাচার্যের অবদান মানুষ শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে’ বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট এর পক্ষ থেকে ঢাকায় মানববন্ধও ও বিক্ষোভ সমাবেশ। বনগাঁ দক্ষিনের বিধায়ক স্বপন মজুমদারের করা হুশিয়ারি.. বিজেপির ঘরের শত্রু মীরজাফর কে ? শেখ হাসিনা মানবতার মা এবং বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য উত্তরসূরি: পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী হিংসা বন্ধ না হলে আমাদের কর্মীরা চুড়ি পরে বসে থাকবে না, তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি শান্তনু ঠাকুরের পশ্চিমবঙ্গে ভোটের ফল বেরোনোর পর থেকে চলছে তৃনমূলের হামলা লুট আগুন ধর্ষন হত্যা । পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে তৃনমূল কি ম্যজিকে জিতলো !! বিজেপির হারের ৫ কারণ নির্বাচনে জিতলেন স্বপন মজুমদার অভিনন্দন বাংলাদেশ আইবিএফের।

ছেলের বন্ধুদের হাতে খুন হলেন সজল নন্দি

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ শুক্রবার, জুন ১, ২০১৮,
  • 40 সংবাদটি পঠিক হয়েছে
 

চট্টগ্রামে নিজ বাসায় ব্যাংক কর্মকর্তা সজল নন্দি খুনের রহস্য উন্মোচন হয়েছে। ব্যাংক থেকে নেয়া ঋণের ২৯ লাখ টাকা লুট করতেই সজল নন্দির ছেলের তিন বন্ধু মিলে এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করেছে।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) মামলাটির তদন্তভার হাতে নিয়ে ঘটনার ৫ দিনের মাথায় হত্যারহস্য উন্মোচন করল।

এ ঘটনায় জড়িত তিন কিশোরকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই। এরা হচ্ছে- নগরীর একটি স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্র প্রতীক মজুমদার (১৬), সদ্য এসএসসি পাস করা জয় (১৭) এবং এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র জিকু বড়ুয়া (১৯)।

বুধবার রাতে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এদের মধ্যে প্রতীক মজুমদার সজলের ছেলের বন্ধু। বিকালে এ রিপোর্ট লেখার সময় পিবিআই গ্রেফতার হওয়া তিনজনকে নিয়ে সজলকে খুনে ব্যবহৃত ছোরা উদ্ধার করতে নগরীর বন্দর থানার মাইলের মাথা এলাকায় অভিযান চালাচ্ছিল।

রবিবার নগরীর বন্দর থানার মধ্যম হালিশহর এলাকার বাসা থেকে ব্যাংক কর্মকর্তা সজল নন্দির রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি রাষ্ট্রায়ত্ত রূপালী ব্যাংকের সল্টগোলা শাখায় ক্যাশিয়ার পদে কর্মরত ছিলেন। বাংলাদেশ বেতারের তালিকাভুক্ত শিল্পীও ছিলেন সজল। তার স্ত্রী রুমা নন্দী একজন এনজিওকর্মী।

সজলের বাড়ি চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার জ্যৈষ্ঠপুরা গ্রামে। পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাঈনউদ্দিন জানান, রবিবার সজলের নিজ বাসা থেকে লাশ উদ্ধারের পর পিবিআই ছায়া তদন্তে নামে।

এরপর তারা ওই বাসার আশপাশ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে। এছাড়া ওই এলাকার কিছু মোবাইলের কললিস্ট যাচাই-বাছাই করে তিনজনের কললিস্ট সন্দেহের তালিকায় নেন। পরে ফোন ট্র্যাকিং করে নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।
পিবিআই জানায়, কিছুদিন আগে সজল রূপালী ব্যাংক থেকে পারিবারিক প্রয়োজনে ২৯ লাখ টাকা ঋণ নেন। কথায় কথায় বিষয়টি সজলের ছেলে তার বন্ধু প্রতীক মজুমদারকে জানায়। এ তথ্য জানার পর প্রতীক তার অন্য দুই বন্ধুকে নিয়ে ঋণের টাকা লুট করার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী রবিবার সকালে সজলের বাসায় হানা দেয় তারা। এ সময় বাসায় সজল ছাড়া আর কেউ ছিল না। তিন কিশোর বাসায় ঢুকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে সজলকে টাকা বের করে দিতে বলে। এ সময় বাধা দিতে গেলে তারা সজলকে গলা কেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

পিবিআই’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাঈনুদ্দিন বলেন, গ্রেফতার হওয়া তিনজন প্রাথমিকভাবে টাকার লোভে সজলকে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করেছে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »