২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ৪:৪২
ব্রেকিং নিউজঃ

ভন্ডামি উপাখ্যান

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ শুক্রবার, এপ্রিল ২৬, ২০১৯,
  • 278 সংবাদটি পঠিক হয়েছে


মোল্লা আজাদ হোসেন

ইদানিং বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই বন্ধুর কথা খুব মনে পড়ছে। একই নামের, একই হলের, একই বিভাগের ঐ দুই বন্ধু সে বার ভন্ডামির প্রতিযোগিতায় নেমেছিল। একজনের দাবী ছিল সে বড় ভন্ড, অন্যজনের দাবী ছিল সে। এই নিয়ে দুজনের মধ্যে বেশ কিছু দিন ধরে চলল তুমুল তর্ক বিতর্ক, যুক্তি আর তথ্য উপাত্ত উপস্হাপন। দিন রাত চলতে লাগল নিজেকে বড় ভন্ডরূপে উপস্হাপনের প্রানান্ত চেষ্টা। মেধাবী এই দু ভন্ডের লড়াই যেন কেউ কারে না ছাড়ে সমানে সমান। এক পর্যায়ে সিদ্ধান্ত হলো নির্বাচনের। দিন ক্ষন ঠিক হলো ভোটের। ভোট হলো। তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ ভোটে এক ভোটের ব্যাবধানে জয় পরাজয় নিশ্চিত হলো। একজন হলেন সেরা ভন্ড আর একজন রানার আপ। আত্ন পরিচয়ের স্বীকৃতি পেয়ে তার সে কী আনন্দ!

আত্মস্বীকৃত এই দুই ভন্ড বন্ধুদের আজ খুবই মনে পড়ছে। ওরা দুজনেই ছিল প্রচন্ড মেধাবী, সৎ চিন্তাশীল, আদর্শিক, মানবিক বিবেকবোধ সম্পন্ন, স্বপ্নচারী সুন্দরের পূজারী। সমাজে আজ আত্মস্বীকৃত এই জাতীয় ভন্ডদের বড়ই অভাব। স্বঘোষিত অভন্ডের টোপাপানায় ভরপুর সমাজে ভন্ডের সংখ্যা নেহায়েতই নগন্য। তথাকথিত স্বঘোষিত অভন্ডদের দাপটে মানুষ নামের অতিমানবেরা নিজেদের গুটিয়ে নিয়েছে আপন খোলসে। বিপরীতে হৃদয়হীন, ধর্মহীন, আদর্শহীন, বিবেক বিবর্জিত, মানুষগুলো নিজেকে জাহির করছে গ্রহ থেকে গ্রহান্তরে। ছোট ছোট তারকারাজির দাপটে বড়বড় তারকারা অন্ধকার আকাশে অনুজ্বল নিশপ্রভ। তাদের ধারালো নখরের মায়াবী পরশে থরেকম্প ওঠে গ্রহবাসীর, অগ্নিশর্মা চোখের মায়াবী চাহনিতে জিহবা থেকে কলিজা অব্দি শুকিয়ে যায় স্বজাতির। বিস্ফোরকের আঘাতে ভু্লুন্ঠিত হয় মানবতা, মানুষের লাল রক্তে রন্জিত হয় মসজিদ, মন্দির, গীর্জা ও প্যাগোডা। নিথর শিশুর দেহের ভার বহনে কেপে ওঠে পৃথিবী।বারুদের সুগন্ধে ভরে ওঠে দুনিয়া। ফুলের সুবাস তাদের ভাল লাগেনা, বারুদের গন্ধের নেশায় তারা মাতোয়ারা। ধর্মের অমীয় বানী, প্রেমের কবিতাখানি তাদের কানে বিরক্তিকর লাগে। মানুষের রোনাজারি, আহাকার তাদের অশান্ত হৃদয়ে শান্তির সুধা ঢেলে দেয়। তাদের শরীরে আজ গালিভার্স ট্রাভেলস এর হুইনিমের গন্ধ, ধমনিতে হুইনিমের রক্ত।জীবনানন্দের কবিতা, বারবার মাথায় ঘুরপাক খায়” যারা অন্ধ সব চেয়ে আজ বেশি দ্যাখে তারা । যাদের হৃদয়ে প্রেম নেই,প্রীতি নেই করুনার আলোড়ন নেই, পৃথিবী আজ অচল তাদের সু পরামর্শ ছাড়া। “

বোধকরি, মানুষের ছিটেফোটা গন্ধ আর রক্ত যাদের গায়ে তারা নিজেকে অমানুষ নামে পরিচয় না দিয়ে ভন্ড নামে পরিচয় দিয়ে মানুষের মর্যাদা রক্ষার চেষ্টা করেছেন।”উল্টোটাই আমি” এর মত নিজেকে তুলনা করেছেন ” লাল টুকটুকে পলাশ অথবা লাল হলুদে মেশানো ঝকঝকে মাকাল ফলের সাথে। ” নিজেকে ভন্ড হিসেবে পরিচয় দেয়ার মানে সেদিন খুব ভালোভাবে বুঝতে না পারলেও আজ হাড়ে হাড়ে উপলব্ধি করছি তাদের ভন্ডামী উপাখ্যান।

অনুধাবন করছি William Shakespeare এর জীবনঘনিষ্ঠ অমর বানী, ” I am not what I am.”
“To be or not to be, that’s the question. ” অথবা ” Cowards die many times before their death, But the Valient tastes it but once. ” বন্ধু তোমাদের ভন্ডামি বেঁচে থাক- জন্ম জন্মন্তরে, যুগ যুগান্তরে ;প্রজন্ম -প্রজন্মান্তরে, স্বঘোষিত অভন্ডদের ভন্ডামির মুখোশ উন্মোচিত করতে। তোদেরকে, তোদের ভন্ডামিকে আজ বড় বেশি প্রয়োজন, পৃথিবী নামক গ্রহের।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »