৭ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ সকাল ১১:৩৭
ব্রেকিং নিউজঃ
নন্দীগ্রামের মহাযুদ্ধে শুভেন্দুই যে দলের প্রধান মুখ সেরকম বার্তাই দিলেন মোদী-শাহ’রা !! ভারতের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে শ্রীধাম ওড়াকান্দি সহ ২টি শক্তিপীঠ পরিদর্শন করবেন। সোনালী হাতছানিতে উথাল-পাতাল রূপোলী আকাশ !! ফের আর একবার ঐতিহাসিক নাম হয়ে উঠতে চলেছে নন্দীগ্রাম !! উজিরপুরে ঝরে পড়া শিশুদের নিয়ে ভোসড এর উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার অবহিতকরণ সভা প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম আর নেই কিছু বিশেষ ফ্যাক্টর বিজেপি’র সম্ভাবনা জোরদার করছে !! ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক দিনের সফরে আসছেন বৃহস্পতিবার বিজেপি ক্ষমতায় এলে অরাজকতা থাকবে না, বললেন যোগী ৪১তম বিসিএস নিয়ে যা বললেন পিএসসির চেয়ারম্যান

বরিশাল সদর উপজেলার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কোচিং বানিজ্য প্রাথমিক স্কুল পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের শঙ্কা। হতাশ অভিভাবক !!

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০,
  • 68 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

বরিশাল নগরীর বীণাপানি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পার্থ, ফেরদৌসি ও জোবাইদা সরকারী নিয়মের তোয়াক্কা না করে চালিয়ে যাচ্ছে সরকারী নিষিদ্ধ কোচিং বানিজ্য। অভিভাবকসূত্রে জানা যায়, পার্থ বীণাপানি মডেল স্কুলের সামনে জাফর মজ্ঞিলে চালিয়ে যাচ্ছে কোচিং বানিজ্য। ব্যাচে ২০ থেকে ২২ করে জনপ্রতি ১০০০ টাকা নিয়ে কোচিং করাচ্ছে। উপর দিকে ফেরদৌসি ও জোবাইদা ও তাদের নিজে বাসায় কোচিং বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে। এসব কোচিং বাজ শিক্ষকদের কারণে বীণাপানি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গত ২০১৯ সালে চঊঈ পরীক্ষায় এচঅ-৫এসেছে মাত্র ৯টি যা গত বছরের তুলনায় নগন্য। অপর দিকে আব্দুল হাকিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নিজে ক্লাস রুমে কোচিং করায়। (বিকাল ৩-৫ টায়) সিস্টার ডে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা রিমকি নিজ বাসা বগুড়া রোড, পেস্কার বাড়ি। আছমত মাস্টার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা নিজ বাসায় কোচিং করায় । গোপনসূত্রে জানা যায়, কোচিং বাজ এসব শিক্ষকরা শিক্ষা কর্মকতা ও প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে চালিয়ে যাচ্ছে অবৈধ কোচিং বানিজ্য, যার কারণে বার বার স্থানীয় দৈনিকে সংবাদ প্রকাশ হলেও বন্ধ হয়নি তাদের কোচিং বানিজ্য। বরং অদৃশ্য ক্ষমতাবলে চালিয়ে যাচ্ছে কোচিং বানিজ্যসহ ভর্তি বানিজ্য। বর্তমানে উপজেলার প্রশ্ন বাদ দিয়ে নিজ নিজ স্কুল প্রশ্ন করে পরীক্ষা নেওয়ার কারণে এ কোচিং বানিজ্য শুরু হয়েছে। শিক্ষাবিদদের মতে এসব কোচিং বানিজ্য বন্ধ না হলে প্রাথমিক শিক্ষা থেকে ছিটকে পরবে কোমলমতি শিশুরা । সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি বিষয়টি তদন্ত স্বরুপ দেখবেন বলে জানান। জেলা শিক্ষা অফিসারকে মুঠো ফোনে পাওয়া যায়নি।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »