৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ সকাল ১১:১৮
ব্রেকিং নিউজঃ
ভারতে ‘লাভ জিহাদ’ রুখতে বিল পাশ মানিকগঞ্জে একটি হিন্দু পরিবারের উপর হামলা বিশ্ব হিন্দু পরিষদের(ভি,এইচ,পি)তিন দফা হিন্দু সুরক্ষা আইন ও পৃথক মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদকে নিষিদ্ধ করার দাবি বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ জয়ন্তী হালদারকে জোর করে তুলে নিয়েছিল রাশেদ উদ্ধার করে পুলিশ । হামলা চালিয়ে ইরানের শীর্ষ বিজ্ঞানীকে হত্যা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন শুভেন্দু-ঘনিষ্ঠ সিরাজ খান পার্বত্য চট্টগ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে তীব্র অসন্তোষ বছরে ৪শ’ কোটি টাকার চাঁদাবাজি দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর ৫৮৫০ মিটার দুবলার চরে রাস পূর্ণিমায় নিরাপত্তা দিবে কোস্ট গার্ড

ভারসাম্যহীন শিক্ষককে পুড়িয়ে মারল আমজনতা, পিতৃহারা হলো শিশুটি

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ রবিবার, নভেম্বর ১, ২০২০,
  • 114 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ আগুনে পোড়ানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার মাগরিবের নামাজের আগে বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে ঘটে এ ঘটনা।

যে ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার পর পোড়ানো হয়েছে তার নাম আবু ইউনুস মো. সহিদুন্নবী জুয়েল। বাড়ি রংপুর শহরের শালবান এলাকায়। তিনি রংপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজের সাবেক লাইব্রেরিয়ান ছিলেন। তার বাবার নাম আবদুল ওয়াজেদ মিয়া।

জানা গেছে, সহিদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ আগুনে পোড়ানোর ঘটনায় নিহতের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। শিক্ষক বাবাকে হারিয়ে কাঁদছে ছোট্ট ছেলেসহ পুরো পরিবার।

পরিবারের অভিযোগ, কোনো কিছুর সত্যতা যাচাই না করেই সহিদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গুজবের বশবর্তী হয়ে এ ঘটনা ঘটনো হয়েছে। আমরা জুয়েল হত্যার বিচার চাই।

আরো পড়ুন: লালমনিরহাটে যুবককে পিটিয়ে হত্যার পর আগুনে পোড়ানো হলো লাশ

এক ব্যক্তি জানান, জুয়েলকে ভালোভাবে চিনি। নামাজি, ভদ্র, শান্ত স্বভাবের ছিলেন। রংপুর জিলা স্কুলের ৮৬তম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন।

সহিদুন্নবী জুয়েলের সরাসরি ছাত্র শাহরিয়ার শুভ জানান, স্যার(জুয়েল) প্রচুর পড়তেন। সারাদিন লাইব্রেরিতে বসে থাকতেন।

তিনি আরো জানান, স্যার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ইনফরমেশন সাইন্স অ্যান্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট’ বিভাগের ছাত্র ছিলেন। আমার স্কুল ও কলেজ জীবনে তাকে যথেষ্ট ধার্মিক হিসেবে জানতাম। তাকে প্রতিদিন স্কুল মসজিদে নামাজ পড়তেও দেখতাম। বিতর্কের সময় আমরা তার রুমে বসে প্রস্তুতি নিতাম। সেসময় তিনি আমাদের নানা ধরনের উপদেশ দিতেন।

তবে মানসিক ভারসাম্যহীনতার কারণে সহিদুন্নবী জুয়েলের চাকরি চলে যায় বলে জানিয়েছেন তার এলাকাবাসী, বন্ধু ও সহকর্মীরা। গত এক বছর আগে চাকরিচ্যুত হয়েছিলেন।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »