২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ সকাল ৯:০০
ব্রেকিং নিউজঃ
বিমানবন্দরে সাফজয়ী কৃষ্ণা রানীর আড়াই লাখ টাকা চুরি ভারতের নতুন হাইকমিশনার প্রণয় কুমার ভার্মা ঢাকায় কপাল পুড়বে ১৪০ এমপির প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে সঙ্গী হলেন যারা কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদীতে হিন্দুদের বাড়ি-ঘর ও দোকানপাটে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ। রাঙ্গামাটিতে সুভাষ দাস ও মনি দাস দম্পতিকে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানবিক নির্যাতন ড্রাইভিং লাইসেন্সের লিখিত পরীক্ষার স্ট্যান্ডার্ড ৮৫টি প্রশ্ন ব্যাংক ও উত্তর নিজে শিখুন এবং অন্যকে শেখার জন্য উৎসাহিত করুন। আবার ভুমিদস্যুর হাতে আহত সংখ্যালঘু হিন্দু… বাংলাদেশেও অর্থপাচারের অভিযোগ পার্থের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের সম্পর্ক উন্নয়নে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকা

‘তৃতীয় শক্তি’র দিকে সিইসির ইঙ্গিত অশুভ : রিজভী

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮,
  • 168 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, নির্বাচনকে ঘিরে সহিংসতা বন্ধ করতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে পারতেন। কিন্তু তা না করে তিনি তৃতীয় শক্তির ওপর দায় চাপিয়েছেন। রিজভী বলেছেন, ‘তাঁর (সিইসি) এ বক্তব্য অশুভ ইঙ্গিতবাহী।’আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।গতকাল এক সভায় সিইসি কে এম নুরুল হুদা বলেছিলেন, ভোটের মাঠে সহিংসতার পেছনে কোনো তৃতীয় শক্তি রয়েছে কি না, সতর্ক থাকতে হবে। সিইসির এই মন্তব্যের সূত্রে আজ এসব কথা বলেন রিজভী।রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিকে তৃতীয় কোনো শক্তির ষড়যন্ত্র হিসেবে সিইসি তাঁর বক্তব্যে উল্লেখ করেছেন। হঠাৎ তাঁর এ বক্তব্য গভীর সন্দেহজনক বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। সিইসি নিরপেক্ষ ও সহিংসতামুক্ত নির্বাচন চাইলে সেনাবাহিনীকে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে মাঠে নামাতে পারতেন, কিন্তু নামাননি।’রিজভী অভিযোগ করে বলেন, ‘পুলিশ ভোটের মাঠে এখন আওয়ামী লীগের লেঠেল বাহিনীতে অবতীর্ণ হয়েছে। এই অকল্পনীয় সহিংসতা ও পাইকারি গ্রেপ্তারের দায় সিইসি নিজে না নিয়ে তৃতীয় শক্তির ষড়যন্ত্রের কথা বলছেন। তা রহস্যজনক। তাঁর এই বক্তব্য অশুভ ইঙ্গিতবাহী।’বিএনপির নেতাকর্মীরা হামলা-নির্যাতন থেকে রেহাই পাচ্ছে না জানিয়ে রিজভী বলেন, ‘সরকারি দলের হামলা ও পুলিশি নির্যাতন থেকে যেহেতু পরিত্রাণ মিলছে না, তাই নেতাকর্মীদের নিজ থেকেই আত্মরক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণ করা ছাড়া আর কোনো বিকল্প থাকছে না। বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর হামলা-নির্যাতনের মতো অপরাধমূলক ঘটনায় পুলিশ কোনো ধরনের আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে না। যেহেতু নেতাকর্মীরা কোনো কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আশ্রয় পাচ্ছেন না, তাই নিজেদেরই আত্মরক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। আইনগতভাবে প্রত্যেক নাগরিকের জানমাল রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অধিকার আছে।’

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »