১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ সকাল ১০:৩১
ব্রেকিং নিউজঃ
বিমানবন্দরে সাফজয়ী কৃষ্ণা রানীর আড়াই লাখ টাকা চুরি ভারতের নতুন হাইকমিশনার প্রণয় কুমার ভার্মা ঢাকায় কপাল পুড়বে ১৪০ এমপির প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে সঙ্গী হলেন যারা কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদীতে হিন্দুদের বাড়ি-ঘর ও দোকানপাটে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ। রাঙ্গামাটিতে সুভাষ দাস ও মনি দাস দম্পতিকে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানবিক নির্যাতন ড্রাইভিং লাইসেন্সের লিখিত পরীক্ষার স্ট্যান্ডার্ড ৮৫টি প্রশ্ন ব্যাংক ও উত্তর নিজে শিখুন এবং অন্যকে শেখার জন্য উৎসাহিত করুন। আবার ভুমিদস্যুর হাতে আহত সংখ্যালঘু হিন্দু… বাংলাদেশেও অর্থপাচারের অভিযোগ পার্থের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের সম্পর্ক উন্নয়নে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকা

বদিকে পাশে রেখেই স্ত্রী বললেন, ‌‘ইয়াবার বিরুদ্ধে লড়ব’

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ৩, ২০১৯,
  • 190 সংবাদটি পঠিক হয়েছে


একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-৪ (টেকনাফ-উখিয়া) আসন থেকে জয়ী আওয়ামী লীগ নেতা আবদুর রহমান বদির স্ত্রী শাহিন আক্তার ইয়াবাসহ মাদকের বিরুদ্ধে লড়াই চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সংসদ ভবনে শপথ অনুষ্ঠানের পর স্বামী বদিকে পাশে রেখেই সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ ঘোষণা দেন।

শাহিন আক্তার বলেন, মাদক, ইয়াবা ব্যবসাসহ সকল ধরনের অপকর্ম বন্ধ করতে যা যা করণীয়, আমি তাই করব।

বিতর্কিত বদিকে বাদ দিয়ে এবার কক্সবাজার-৪ (টেকনাফ-উখিয়া) আসনে তার স্ত্রীকে নৌকার প্রার্থী করে আওয়ামী লীগ।

গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে শাহিন প্রায় পৌনে দুই লাখ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। নৌকার প্রার্থী শাহীন আক্তার পান ১ লাখ ৯৬ হাজার ৯৭৪ ভোট। এর মধ্যে টেকনাফ উপজেলায় ১ লাখ ২২ হাজার ৬৮০ এবং উখিয়া উপজেলায় ৭৪ হাজার ২৯৪ পান।

এদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের শাহজাহান চৌধুরী পান ৩৭ হাজার ১৮ ভোট। তিনি টেকনাফ উপজেলায় ৮ হাজার ২১০ এবং উখিয়া উপজেলায় ২৮ হাজার ৮০৮ ভোট পান। নৌকা ১ লাখ ৫৯ হাজার ৬৯৫৬ ভোটের ব্যবধানে জয় লাভ করেছে।

কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনের একটি পৌরসভা ও ১১টি ইউনিয়নে ২ লাখ ৬৬ হাজার ১৪৬ জন ভোটার। এর মধ্যে নারী ভোটার ১ লাখ ৩২ হাজার একজন এবং পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৩৪ হাজার ১৪৫ জন। এ আসনের ১০০টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে।

২০০৮ সালে কক্সবাজার-৪ আসনে বদি প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে সমালোচনার মুখে পড়েন বদি।

এছাড়া ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের টানা দুই মেয়াদে শিক্ষক পেটানো, প্রকৌশলী ও আইনজীবীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত এবং ইয়াবা ইস্যুতে তুমুল সমালোচনায় পড়েন আবদুর রহমান বদি।

পাশাপাশি একের পর এক বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের কারণে নিজে যেমন বিতর্কে জড়িয়ে যান ঠিক তেমনি দলকেও ফেলেন নানা বেকায়দায়। যে কারণে প্রতিনিয়তই তাকে নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগদের মধ্যে ছিল বিরোধিতা ও অসন্তোষ।




এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »