২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ সন্ধ্যা ৭:৩৩

সাতক্ষীরায় সংখ্যালঘু তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের পর পুকুরে ফেলে হত্যা

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ সোমবার, জানুয়ারি ৭, ২০১৯,
  • 212 সংবাদটি পঠিক হয়েছে


 সাতক্ষীরায় সংখ্যালঘু তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের পর পুকুরে ফেলে হত্যা করা হয়েছে। 

রবিবার রাতে জেলার আশাশুনি উপজেলার গাবতলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনায় পুলিশ ধর্ষক জয়দেব সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে। সে আশাশুনি উপজেলার গাবতলা গ্রামের নির্মল সরকারের ছেলে ও বুধহাটা বিবিএম কলেজিয়েট স্কুলের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

নিহত সুস্মিতা আশাশুনি উপজেলার গাবতলা গ্রামের প্রশান্ত দাসের মেয়ে। সে গাবতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ত।

মেয়েটির বাবা জানান, তার মেয়ে প্রতিবেশী নির্মল সরকারের মেয়ে অম্বিকা সরকারের কাছে প্রতিদিন বিকেলে প্রাইভেট পড়তে যেত। রবিবার বিকেলে অম্বিকা বাড়িতে না থাকায় তার ভাই জয়দেব সরকার সুস্মিতাকে প্রাইভেট পড়িয়ে বাড়িতে ব্যাগ রেখে আবারো ডেকে নিয়ে যায়। সন্ধ্যায় তাকে গাবতলার সত্য রঞ্জন দাসের দোকান থেকে খাবার কিনে বাড়িতে নিয়ে যায়। বাড়িতে কেউ না থাকার সূযোগে সুস্মিতাকে ধর্ষণ করে জয়দেব। একপর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে সুস্মিতা মারা গেছে ভেবে তাকে বাড়ির পুকুরে ফেলে দেয়।

পরে গ্রামবাসী সুস্মিতাকে খোঁজার একপর্যায়ে পুকুরে জাল ফেলার কথা বললে পুকুর থেকে লাশ তুলে সুস্মিতাকে নিজের বাথরুমে ফেলে রাখে। রাত ১১টার দিকে পুলিশ সুস্মিতার লাশ উদ্ধার করে। গ্রেপ্তার করে জয়দেব সরকারকে।

আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথ জানান, সোমবার সকালে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তার জয়দেব সরকার ধর্ষণ ও হত্যার কথা স্বীকার করায় তাকে আদালতের মাধ্যমে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি করানো হবে।

 

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »