৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ বিকাল ৩:৪৬

সীমানা_বিরোধ নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন!

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ মঙ্গলবার, নভেম্বর ৭, ২০১৭,
  • 198 সংবাদটি পঠিক হয়েছে


সিরাজদিখানে ৯ হিন্দু পরিবারের যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ!!!

সিরাজদিখানে জমি সংক্রন্তা বিরোধ নিয়ে একই বাড়ীর ৯ টি হিন্দু পরিবারের যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার বয়রাগাদী ইউনিয়নের ছোটপাউলদিয়া গ্রামে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের পাশে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের পাশে দীর্ঘদিন যাবত লক্ষণ চন্দ্র দেবনাথের ছেলে দুলাল চন্দ্র দেবনাথের সাথে জোরপূর্বক বাড়ীর সীমানা নিয়ে ধীরেন চন্দ্র দেবনাথের ছেলে পরিতোষ চন্দ্র দেবনাথ বিরোধ করে আসছে। সি এস রেকর্ড থেকে বাপ দাদার ভিটা বাড়ীতে দুলাল চন্দ্র দেবনাথসহ ৯ টি হিন্দু পবিরারের বৃদ্ধ, শিশু ও মহিলাসহ ৩৯ জন সদস্য বসবাস করছে। এ পরিবার গুলো পরিতোষ দেবনাথের বাড়ীর উপর দিয়ে যাতায়াত করে আসছিল।

গত ৩ মাস আগে একবার বাঁশ দিয়ে যাতায়াতের রাস্তাসহ সর্ম্পুন্ন সীমানা বেড়া দিয়ে বন্ধ কওে দিয়েছিল। সে সময় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান গাজী মো. আলাউদ্দিন রাস্তাটি খুলে দেয়। স্থানীয় প্রভাবশালীদের হাত করে গত ২ মাস আগে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে জোরপূর্বক বাঁশ দিয়ে যাতায়াতের রাস্তাটি বন্ধ করে দেয় পরিতোষ দেবনাথ।

বর্তমানে পরিবার গুলোর সদস্যরা যাতায়াতের কোন রাস্তা না থাকায় ঘুরে অন্যার বাড়ীর টয়লেটের নিচ দিয়ে বাধ্য হয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। কিছুদিন আগে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানের সময় দুলালসহ বাড়ীর সবাই পরিতোষের হাতে পায়ে ধরে বলা হয়েছিল অনুষ্ঠানের দিনে যাতে রাস্তাটা খুলে দেওয়া হয়। তাতে কোন লাভ হয়নি তাই বাধ্য হয়ে বরযাত্রীসহ স্বজনদের টয়লেটের পাশ দিয়ে যেতে হয়। এমনকি তাদেরকে পূজার ঘরে পূজা দিতে দিচ্ছে না। বর্তমানে পরিবার গুলো মানবতের জীবন যাপন করছে।

দুলাল দেবনাথ জানান, বাড়ী নিয়ে বিরোধ থাকলে সমাধান করা হবে। এভাবে মানুষের যাতায়াতের রাস্তা কোন মানুষ বন্ধ করে না। আমাদের পূজা করতেও যেতে দিতেছে না। এমন অমানবিক অত্যাচারের কারণে না পারতেছি থাকতে না টারতোছ বাড়ীঘর বিক্রি করতে।

পরিতোষ দেবনাথ জানান, আমার সীমানায় তাদের বসত ঘর পরেছে। তাদের ঘর ভাঙ্গলে সরিয়ে নিলে রাস্তা খুলে দিবো।

বয়রাগাদী ইউপি চেয়ারম্যান গাজী মো. আলাউদ্দিন জানান, বাড়ীর সীমানা নিয়ে তাদের বিরোধ চলছে। আগে একবার যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে ছিল। আমি খবর পেয়ে রাস্তা খুলে দেই। লিখিত ভাবে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নজরুল ইসলাম জানান, রাস্তা বন্ধ করে থাকলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। যারা মানুষের চলাচলের পথ বন্ধ করে দের আসলে তারা ভালো মানুষ না।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানবীর মোহাম্মদ আজীম জানান, এ ধরনের তথ্য আমার জানা নাই। এ রকম কোন ঘটনা ঘটে থাকলে ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা ভূমি অফিসের মাধ্যমে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »