২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ২:৫৬
ব্রেকিং নিউজঃ
বনগাঁ বিধায়ক স্বপন মজুমদারের করা হুশিয়ারী পেট্রাপোল স্থল বন্দর বন্ধ করে দেওয়া হবে। কুমিল্লায় মুর্তির পায়ে রেখে কোরান অবমাননাকারী গ্রেফতার তিন ! সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান, ইন্দো-বাংলা ফ্রেন্ডশিপ এসোসিয়েশনের। সোমবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ: রাত ২:০৩ AVBP বাড়ি Breaking News বিভৎস নোয়াখালী, ‌ভো‌রের আলো ফুট‌তেই পুকু‌রে ভে‌সে উঠ‌লো আ‌রও এক ইসক‌নের সাধুর মৃত‌দেহ পীরগঞ্জে হামলায় পুড়ল ২০ বাড়িঘর কুমিল্লার একটি পূজামণ্ডপে কোরআন পাওয়া এবং সেটিকে কেন্দ্র করে সহিংসতা সমগ্র বাংলাদেশে। কুমিল্লায় ফেসবুক লাইভে উত্তেজনা ছড়ানো ফয়েজ আটক ভারতে যেন এমন কিছু না হয়, যার জন্য বাংলাদেশের হিন্দুদের ভুগতে হয়! কুমিল্লা নিয়ে হুঁশিয়ারি হাসিনার চীনকে মোকাবিলায় লাদাখে ভারতের কামান কলকাতার মণ্ডপে বুর্জ খলিফা এবং তালেবান মাতার প্রতীকে মমতা

অষ্টাদশ শতকের ব্রিটিশ সন্তান ভারতীয় হিন্দু সভ্যতাকে জগতের কাছে তুলে ধরেছিলেন ।

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ রবিবার, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৮,
  • 123 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

সৌভিক রাতুল বসু

জাদুঘর দেখতে গিয়ে পুরাতাত্ত্বিক সংগ্রহকারক কর্নেল Colin Mackenzie নামটা দেখার পর বিদ্যুত চমকের মত একটি নাম মনে পড়ে গেল —- জেনারেল Charles Stuart ।

গতকাল ভারতীয় জাদুঘরে গিয়েছিলাম প্রায় ৩০ বছর পরে । শেষবার যখন গিয়েছিলাম তখন আমার বয়স বড়জোর বছর দশেক , জাদুঘরের জাদু উপলব্ধি করার বয়স তখনও হয় নি ।

আজ থেকে ২০০ বছর পিছনের উড স্ট্রিট । কোনও এক বাড়ী থেকে কলকাতার রাজপথে প্রকাশ্যে গামছা কাঁধে শুদ্ধ সংস্কৃতে স্তব করতে করতে প্রতিদিন গঙ্গাস্নানে যান এক সাহেব । ‘ Quite a character ‘ — মন্তব্য করেছেন তৎকালীন প্রধান সেনাপতির স্ত্রী Lady Nugent । ‘ An Idol – stealer ‘ বা মূর্তি চোর বলেছেন জনৈক মিশনারি ।

যদিও মিশনারিরা তাঁকে আখ্যা দিয়েছিলেন মূর্তি -চোর বলে । তবে Epigraphia Indica তে
Dr. L.D.Barnett লিখেছেন , “ ভারতীয় হিন্দু রীতিপদ্ধতি এবং মূর্তি ইত্যাদির প্রতি তীব্র আকর্ষণ এবং পুরাতাত্ত্বিক বস্তু সংগ্রহের ব্যাপারে তাঁর অনৈতিক পদ্ধতি গ্রহন , তাঁর এই বদনামের কারণ । “

কিন্তু প্রশ্ন হল , ভারতবর্ষে এত লোভনীয় বস্তু থাকতে Stuart সাহেব পাথরের মূর্তি কিংবা তালপাতার পুঁথিকেই তাঁর একমাত্র লক্ষ্য হিসেবে নিলেন কেন ? পয়সার জন্য তো নয় । তিনি তো সব দান করেছিলেন ।

Stuart সাহেব ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর অধিনায়কত্ব করেছেন দীর্ঘকাল । তারপর সাগর থেকে ওড়িশার বহরমপুর হয়ে কলকাতায় । সাগরে থাকাকালীন এক হিন্দু রমনীকে বিয়ে করে নিজ অর্থেই একটি মন্দির গড়েন । ওড়িশায় থাকতেই তিনি নিয়মিত মন্দিরে মন্দিরে পুজো দিতেন । এরপর চলে এলেন সস্ত্রীক কলকাতায় । এখানে রোজ পায়ে হেঁটে গঙ্গাস্নানে যেতেন , পুজো দিতেন ।

এরপর বাড়ি এসে ঢুকতেন তাঁর মিউজিয়মে । মিউজিয়াম মানে Stuart এর গোটা বাড়িটাই তখন মিউজিয়াম । ভারতীয় ছবি , মূর্তি , পুঁথিপত্র , ঢাল-তরোয়াল , পোশাক – অলংকার সব কিছুই আছে সেখানে । কৌতুহলি দর্শকদের Stuart সাহেব নিজে ঘুরিয়ে দেখাতেন সব ।

শুধু মিউজিয়ম গড়লেই তো লোকে উন্মাদ হয় না । সংস্কৃত বললেও না । তা হলে জোন্স , উইলসন সাহেবদেরও পাগল বলত সাধারণ ইংরেজরা । আসলে Stuart এর উন্মাদ অপবাদের ছিল অন্য কারণ । Stuart ছিলেন হিন্দু , কেবল গঙ্গাস্নান বা মন্দিরে পুজো দিতেন বলে নয় বা হিন্দু মেয়ে বিয়ে করেছিলেন বলে নয় । Stuart এর অপরাধ ছিল যে তিনি বাস্তবিকই হিন্দু হয়ে গিয়েছিলেন । তিনি এমন উৎসাহভরে এ দেশের ভাষা , রীতিনীতি চর্চা করেছিলেন এবং হিন্দুধর্মের প্রতি এমন সহানুভূতিশীল ছিলেন যে সবাই তাঁকে বলত হিন্দু Stuart ।

স্বজাতির ব্যঙ্গ এবং নেটিভদের ভালোবাসার মধ্যে বৃদ্ধ Stuart চলে গেলেন ৩১শে মার্চ , ১৮২৮ । ঘটনাচক্রে এমন হল যে শুধু ভারত নয় , ইংল্যাণ্ডও ভুলতে পারল না তাঁকে । কারণ ইংল্যান্ডের সংস্কৃত ভান্ডারে Stuart রেখে গিয়েছেন একরাশ অমূল্য সম্পদ । এই খবরটিও জানিয়েছিলেন একজন ভারতীয় — রমাপ্রসাদ চন্দ । ১৯৩৪ সালে রমাপ্রসাদ বাবু লন্ডনে গিয়েছিলেন Anthropological Congress এ যোগদান করতে । ব্রিটিশ মিউজিয়ামে ভাস্কর্য ঘাঁটতে গিয়ে তিনি পুনরাবিস্কার করলেন Stuart সাহেবকে ।

যদিও সংগ্রহটি পরিচিত ছিল ’ ব্রিজ কালেকশন ’ নামে কিন্তু catalogue ঘাঁটতে গিয়ে দেখা যায় যে এর মালিক আদপেই T.W.Bridge নয় , আসলে General Stuart । ১৮৩০ সালে নিলামে বিক্রি হয়েছিল এগুলো । বহরমপুরে ( ১৮২৩ ) থাকার সময়ই Stuart এই সংগ্রহটির উল্লেখ করে গিয়েছেন তাঁর উইলে । তিনি উইলে নির্দেশ দিয়ে গিয়েছিলেন যে তাঁর পুরাতত্ত্বের সংগ্রহটি যেন ৩০,০০০ টাকা ইনসিওর করে লন্ডনে পাঠানো হয় । তা ছাড়া আরও লিখেছিলেন যে লন্ডনের বন্ড স্ট্রীটের মিঃ জন নামে এক পুস্তক- বিক্রেতার কাছে ওনার বিরাট পুঁথির এবং ভারতীয় পুরাবস্তুর সংগ্রহ রয়েছে । সেগুলো যেন ব্রিটিশ মিউজিয়ামে দান করা হয় ।

পুঁথিগুলোর কোন খোঁজ পাওয়া যায় নি । মিঃ ব্রিজ কিনেছিলেন ভাস্কর্য নিদর্শনগুলো । ১৮৭২ সালে ব্রিজের কন্যারা আবার নিলামে তুলেছিলেন এই সংগ্রহ । খরিদ্দারের অভাবে মেয়েরা পিতার নামে দান করে দিলেন ব্রিটিশ মিউজিয়ামে । তার নাম ‘ ব্রিজ কালেকশন ’ যা আদপে General Stuart এর সংগ্রহ । General Stuart এর অধিকাংশ সংগ্রহ করেছিলেন অর্থ , চাতুর্য , শক্তি সমস্ত কিছুর বিনিময়ে । কিন্তু কেন ?

South Park Street Cemetery তে Stuart এর সমাধি -মন্দিরটি তৈরি হয়েছিল হিন্দু মন্দিরের গড়নে তাতে হিন্দু দেবদেবী , পৃথ্বীদেবী , মকরবাহিনী গঙ্গার অলংকরন । জীবনের পরম সত্যটাকে মৃত্যুর পরেও যাতে কেউ মিথ্যে না করে দিতে পারে , বিশেষত মিশনারিরা , তার জন্যই Stuart এর এই প্রচেষ্টা । যে চোর চুরি করা দ্রব্যও এমন সদম্ভে প্রকাশ্যে ঘোষনা করে যেতে পারেন , তিনি তো চোর নন ।

আসলে Stuart সাহেব তাঁর সমগ্র জীবন দিয়ে ভারতবর্ষ আর হিন্দুধর্মকে পরিচিত করাতে চেয়েছিলেন পাশ্চাত্য সভ্যতার সঙ্গে । Stuart লিখছেন , “ I allude to those children of the East , the Hindus , a people whose religio- philosophy and wisdom are everyday being more and more revived . Looking back to the earliest days of the history of the known world , we find that the first linguistic records belong to the people under consideration , and date back to that far -distant cycle known as Aryan civilization . Beyond history we cannot go ; but the sculptures , monuments and cave temples of India , all point to a time so far beyond the scant history at our disposal , that in the examination of such matters our ( Western Civilization ) greatest knowledge is dwarfed into infinite nothingness — our age and era are but the swaddling clothes of the child ; our manhood that of the infant in the arms of the eternity of MAHAKAL “ । বিশ্বখ্যাত হস্তরেখাবিদ কিরোও ভারতীয় সভ্যতার প্রাচীন আর বিশালত্ব বর্ননা করতে গিয়ে এই অংশটুকু নিয়েছিলেন ।

অষ্টাদশ শতকের ব্রিটিশ সন্তান General Charles Stuart ভারতীয় হিন্দু সভ্যতাকে জগতের কাছে তুলে ধরার জন্য যে সাহসীকতার পরিচয় দিয়েছিলেন তাতে তাঁকে ‘ মহান ’ বললেও বোধহয় কম বলা হয় ।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »