১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ১২:৩৮
ব্রেকিং নিউজঃ
চানক‍্য-কৌটিল‍্য বিএনপি সন্ত্রাসীদের দৌরত্বে প্রধানমন্ত্রী, বরাবর, আবেদন করলেন অসহায় একটি হিন্দু পরিবার। হরিণের চামড়া ও মাংস পাচারকালে,এনজিও পরিচালক মৃদুল হালদারসহ চার জন গ্রেফতার যোগের মহিমা কি? ৩ সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশ-ভারত ফ্লাইট চালু পিরোজপুরের দৈহারীতে মন্দির ভাঙ্গায় চেয়ারম‍্যান জহিরুল ইসলামের হাত আছে স্থানিয়দের ধারনা। সাদিক আব্দুল্লাহর নাম ভাংগিয়ে এলাকায় ত্রাস-ভূমি দখলের চেষ্ঠা মাসুম বিল্লাহর ।। সরকারী খালে বাধ দিয়ে মাছ চাষ করায় হাজারো কৃষকের ভাগ্য পানির নিচে।। অর্পিতাকে বাঁচাতে এক হলেন তিন দেশের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক! আফগানদের আকাশ থেকে ফেলে গেল যুক্তরাষ্ট্র ভারতের সঙ্গে ফ্লাইট চালু ২০ আগস্ট

ভগবান রাম আমার শিরায় শিরায়, দিদি ঘাবড়ে গেলেন কেন, প্রশ্ন মোদীর

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ সোমবার, মে ৬, ২০১৯,
  • 92 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

কলকাতা: দিদি এতটাই ঘাবড়ে গিয়েছেন যে এখন ভগবানের নাম শুনতে পারছেন না৷ ভগবানের নামও তাঁর কানে খারাপ লাগে৷ হলদিয়ার নির্বাচনী প্রচার মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র আক্রমণ শাণালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ সোমবার ওই মঞ্চ থেকে মোদী বলে চলেন, জয় শ্রী রাম বলা যাবে না! যারা জয় শ্রী রাম বলেছেন, দিদি তাঁদের গ্রেফতার করিয়েছেন৷ জেলে পুরেছেন৷ পশ্চিমবঙ্গে মানুষের পুজো করার ক্ষমতা নেই! কোনও উৎসব পালন করার অধিকার নেই৷

মোদীর এই অভিযোগের প্রেক্ষাপট রচিত হয়েছিল কয়েকদিন আগে৷ রাজ্য সড়ক ধরে চলছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়ি৷ চন্দ্রকোণায় থামলেন৷ কারণ তিনি কানে কিছু শুনেছেন৷ প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য, কিছু মানুষ রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে ‘‘জয় শ্রীরাম’’ ধ্বনি দিচ্ছিলেন৷ গাড়ি থেকে নেমে মুখ্যমন্ত্রী বলতে থাকেন ‘‘পালাচ্ছিস কেন, আয় আয়৷ পালিচ্ছিস কেন? হরিদাস সব …৷ যারা স্লোগান দিচ্ছিলেন, ততক্ষণে পালিয়ে গিয়েছে৷ মুখ্যমন্ত্রীকে রাস্তায় দেখে প্রত্যক্ষদর্শীরা জোরহাত করেছেন৷

২১ সেকেন্ডের এই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায়৷ শনিবার ওই ঘটনার পর বিজেপির নেতারা নিজেদের স্যোশাল মিডিয়া পেজে ওই ভিডিও শেয়ার করেন৷ লিখে দেন নানান মন্তব্য৷ ফেসবুক এবং হোয়াটস্ অ্যাপের মাধ্যমে আম জনতার কাছে পৌছে যায় ওই ভিডিও৷ রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের দক্ষিণবঙ্গ শাখার তরফ থেকে এক মুখপাত্র সাফ জানান, এই কাজ একজন মুখ্যমন্ত্রী করতে পারেন তা না দেখলে বিশ্বাস করা যায় না৷ উনি কেনও কাজই ঠিক করে করে উঠতে পারছেন না৷ তাই হতাশা বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে৷

এদিন ঝাড়গ্রামের অন্য একটি একটি সভায় মোদী বলেন, ‘‘ভগবান রাম আমার শিরায় শিরায় রয়েছেন৷ রাবণকে হারিয়ে লঙ্কা জয় করে ভগবান রাম ভ্রাতা লক্ষণকে বলেছেন, এই সোনার লঙ্কা চাই না৷ মা, জন্মভূমি আমার কাছে স্বর্গ৷’’ মোদী আরও বলেন, ‘‘ভগবান রামই আমার প্ররণা, আমার প্রজ্ঞা৷’’

বিশেষজ্ঞদের মতে, পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোণায় যে অঞ্চলে ঘটনাটি ঘটেছে সেখানে বিজেপির সংগঠন বেশ শক্ত তা পঞ্চায়েত নির্বাচনের পরই বোঝা গিয়েছিল৷ পশ্চিম মেদিনীপুরেই রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের পৈত্রিক বাড়ি৷ এই জেলা থেকেই তিনি বিধায়ক হয়েছেন৷ জঙ্গলমহলের বিজেপির শক্ত অবস্থানের খবর রাখেন মমতাও৷ তিনি ইতিমধ্যেই কিছু নেতৃত্বের পরিবর্তন করেছেন৷’’

তবে মুখ্যমন্ত্রীকে শুনিয়ে জয় শ্রী রাম ধ্বনী তাকে অযথা উত্তেজিত করার প্রচেষ্ঠা বলেও মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা৷ স্বাভাবিকভাবেই বিজেপি মমতার ওই আচরণ থেকে রাজনৈতিক ফায়দা তুবে তা মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷ বিজেপির বক্তব্য, মুখ্যমন্ত্রী অযথা উত্তেজিত হলেন কেন? জয় শ্রী রাম ধ্বনী – বলা তী অপরাধ? মুখ্যমন্ত্রী গাড়ি থেকে নেমে তাদের সঙ্গে গলা মেলাতে পারতেন৷ তাঁকে দেখে সাধারণ মানুষ কেন পালালেন? প্রচারে বিজেপি বলতে শুরু করেছে, ‘‘সাধারণ মানুষ মুখ্যমন্ত্রীর কনভয়ের পাশে এমন কাজ করার সাহস পাচ্ছেন৷ এই থেকে অনুমান করা কঠিন নয় যে মানুষের মনে অসন্তোষ রয়েছে৷ সুযোগ পেলেই সেই অসন্তোষ বাইরে বেরিয়ে পড়ছে৷ মানুষ শাসকদলের নেতাদের এখন ভয় পাচ্ছে না৷ ’’

মোদী সোমবার জনসভায় বলেছেন, দিদি গণতন্ত্রকে ভয় পাচ্চেন৷ রাজ্যের মানুষের উপর দিদির চমকি-ধমকি চলবে না৷ এখন জনতার চমকি ধমকি চলবে৷ যদি দিদি মানুষের রায়কে ভয় পান তবে এই ভয় ভালো, দিদি যদি গণতন্ত্রকে ভালোবাসেন তবে এই ভয় ভলো৷ ‘‘দিদি বুঝে গিয়েছেন, তিনি ১০টি আসন পর্যন্ত পৌছবেন না৷’’

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »