২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ সকাল ৮:২৯
ব্রেকিং নিউজঃ
বিমানবন্দরে সাফজয়ী কৃষ্ণা রানীর আড়াই লাখ টাকা চুরি ভারতের নতুন হাইকমিশনার প্রণয় কুমার ভার্মা ঢাকায় কপাল পুড়বে ১৪০ এমপির প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে সঙ্গী হলেন যারা কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদীতে হিন্দুদের বাড়ি-ঘর ও দোকানপাটে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ। রাঙ্গামাটিতে সুভাষ দাস ও মনি দাস দম্পতিকে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানবিক নির্যাতন ড্রাইভিং লাইসেন্সের লিখিত পরীক্ষার স্ট্যান্ডার্ড ৮৫টি প্রশ্ন ব্যাংক ও উত্তর নিজে শিখুন এবং অন্যকে শেখার জন্য উৎসাহিত করুন। আবার ভুমিদস্যুর হাতে আহত সংখ্যালঘু হিন্দু… বাংলাদেশেও অর্থপাচারের অভিযোগ পার্থের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের সম্পর্ক উন্নয়নে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকা

সুইজারল্যান্ডের গ্রামে স্থায়ীভাবে থাকলেই মিলবে টাকা!

রিপোর্টার নাম
  • আপডেট টাইমঃ বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৩, ২০১৭,
  • 427 সংবাদটি পঠিক হয়েছে

উপরের ছবিতে যে নান্দনিক গ্রামটি দেখা যাচ্ছে সেটার নাম ‘আলবিনেন’। সুইজারল্যান্ডের ভেল্যাইস প্রদেশের লিউকারবেড জেলায় এর অবস্থান। সুইজারল্যান্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত অপরূপ সুন্দর এ গ্রামটির অধিবাসীরা সম্প্রতি একটি প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছে। প্রস্তাব অনুযায়ী এ গ্রামের বাইরের কেউ যদি এখানে এসে বাস করতে রাজি হয় তবে গ্রাম পরিচালনা কর্তৃপক্ষ তাকে বা তার পরিবারকে টাকা দেবে- এমনটিই প্রচার করা হয়েছে সুইজারল্যান্ডের জাতীয় সংবাদমাধ্যমে।

এই প্রস্তাবটির পেছনে কারণ হচ্ছে এখানকার স্থানীয় অধিবাসীদের সংখ্যা কমে যাওয়া। আলবিনেন নামক এই গ্রামটির বেশিরভাগ বাড়িই হলিডে হোম। হলিডে হোম মানে, যেসব বাড়ির মালিকদের অন্য জায়গায় স্থায়ী বাড়ি আছে, এখানে শুধু অস্থায়ী বসবাসের জন্য বা ছুটি কাটানোর জন্য বাড়ি বা ফ্ল্যাট কিনে রেখেছে। অনেকটা সেকেন্ড হোমের মতো আরকি!

এখানে এমনিতেই খুব কম লোকের বাস, তার ওপর কিছুদিন আগে আবার তিনটি পরিবার এ গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে। সেসব পরিবারের আটজন ছাত্রকে হারিয়ে গ্রামের স্থানীয় বিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম। এসব কিছু মাথায় রেখেই, গ্রামে নতুন অধিবাসীদের আকৃষ্ট করতে তাদের অর্থ দেবার প্রস্তাব করছে সেখানকার স্থানীয় জনগোষ্ঠী। যদি কোন পরিবার আলবিনেনে বাড়ি করতে বা কিনতে রাজি হয় তবে গ্রাম কর্তৃপক্ষ সেই পরিবারের প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ২৫,০০০ ফ্র্যাঙ্ক বা ১৯,০০০ ইউরো এবং প্রত্যেক শিশুদের জন্য ১০,০০০ ফ্রাঙ্ক বা ৭,৬০০ ইউরো দেবে বলে সেখানকার এক সংবাদমাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে। চার সদস্যের কোন পরিবার যদি সেখানে বাস করতে রাজি হয় তবে তাদের ৭০,০০০ফ্র্যাঙ্ক বা ৫৩,০০০ ইউরো দেয়া হবে।

অবশ্য এই অফারের সাথে কিছু শর্তও জুড়ে দেওয়া হয়েছে। এতো লোভনীয় প্রস্তাব, সাথে কোন শর্ত থাকবে না তা আবার হয় নাকি! বসবাসে ইচ্ছুক অধিবাসীদের বয়স অবশ্যই ৪৫ বছরের কম হতে হবে এবং কমপক্ষে এ গ্রামে দশ বছর বাস করতে হবে। তারা এখানে যে বাড়ি কিনবে বা বানাবে তার অর্থমূল্যে কমপক্ষে ২০০,০০০ ফ্র্যাঙ্ক বা ১৫২,০০০ ইউরো হতে হবে। এবং এ গ্রামের বাড়িটি অবশ্যই তাদের মূল বাড়ি হতে হবে।

গ্রাম কর্তৃপক্ষ প্রতিবছর এ প্রকল্পের জন্য ১০০,০০০ ফ্র্যাঙ্ক বরাদ্দ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। নতুন অধিবাসীরা সেখানে গিয়ে বসবাস করলে, তারা যে কর দেবে বা বাড়ি নির্মাণের জন্য যা খরচ করবে তার মাধ্যমে গ্রামের অধিবাসীরা উপকৃত হবে। এসব চিন্তা মাথায় রেখেই এ ধরণের অফার দেওয়া হয়েছে। আলবিনেন গ্রামটির ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয় সেখানকার জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে।

সুইজারল্যান্ড, যে দেশকে পৃথিবীর সবথেকে সুন্দর, মনোরম, আর বসবাসযোগ্য দেশ বলে বিবেচনা করা হয়, সেখানকার একটি গ্রামে মানুষ থাকার জন্য বিভিন্ন রকম লোভনীয় প্রস্তাব প্রচার করতে হচ্ছে। আর আমাদের বাংলাদেশে, যে দেশের রাজধানী পৃথিবীর সবচেয়ে বসবাস অযোগ্য শহরের একটি বলে বিবেচিত, সেখানে অতিরিক্ত জনসংখ্যার চাপে টিকে থাকাই দায়। সৃষ্টিকর্তার কী অদ্ভুত লীলা! 

এই পোস্টটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ ...
© All rights Reserved © 2020
Developed By Engineerbd.net
Engineerbd-Jowfhowo
Translate »